March 3, 2024, 8:33 pm

জায়েদ খান ও শাকিব খান- দুজনই এক্সক্লুসিভ : সাক্ষাৎকারে সায়ন্তিকা

Reporter Name
  • আপডেট Friday, September 1, 2023
  • 52 জন দেখেছে

বিনোদন ডেস্ক :: গত ৩০ আগস্ট বুধবার সকালেই কলকাতার নায়িকা সায়ন্তিকা ঢাকায় পা রাখেন। আর সেদিন দুপুরেই তাকে নিয়ে কক্সবাজারে উড়াল দেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান। সমুদ্রতীরবর্তী শহরে জায়েদ খান ও সায়ন্তিকার ছায়াবাজ সিনেমার শুটিং শুরু হয়েছে বুধবার। এর আগে সায়ন্তিকা ঢাকাই সিনেমার শীর্ষ অভিনেতা শাকিব খানের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করেছেন।শুক্রবার দুপুরে হোটেল সি পার্ল-এর সামনে শুটিং করছিলেন। এরই ফাঁকে কয়েকটি প্রশ্নের উত্তরে জানালেন দুই খানের সঙ্গে কাজ ও বাংলাদেশ সম্পর্কিত অভিজ্ঞতার বিষয়ে।

নিশ্চয়ই ভালো আছেন, ভালো লাগার মতো শহরে যেহেতু আছেন? 
হ্যাঁ হ্যাঁ, অবশ্যই। ভীষণ দারুণ আছি আমি।ভীষণ উপভোগ করছি। আমি জায়েদ খানকে বলেছি, এই দেশ ছেড়ে আমি কোথাও যাব না আর।

কলকাতায় কেন ফিরবেন না আর? 
হ্যাঁ হ্যাঁ, অবশ্যই সেটা মজা করে বলেছিও। এর কারণও রয়েছে।এখানে সবাই আমাকে ভীষণ আদর করছে, আপ্যায়ন করছে। এর এত সুন্দর পরিবেশের মধ্যে রয়েছি। এসব ছেড়ে যেতে কার ইচ্ছা হয় বলুন?

তা অবশ্য যথার্থ বলেছেন। জায়েদ খানের সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করছেন, কেমন লাগছে, হবে তো ওনার দ্বারা?
কী যে বলছেন! জায়েদ খান দারুণ একজন অভিনেতা। তার সঙ্গে স্ক্রিন শেয়ার করতে আমার খুবই ভালো লাগছে।আমার মনে হয়, জায়েদ খানেরও ভালো লাগছে। আমরা বেশ আনন্দ নিয়ে কাজ করছি। সত্যি কথা বলতে কী, জায়েদ খান যেমন বড় মাপের অভিনেতা, তেমনি বড় মাপের মানুষ।

আপনি তো শাকিব খানের সঙ্গে অভিনয় করেছেন। আবার জায়েদ খানের সঙ্গেও অভিনয় করছেন। এই দুজনের সঙ্গেই আপনার কাজ করা হয়েছে, হচ্ছে। যদি দুজনকে অভিনয়শিল্পী হিসেবে, একই সঙ্গে মানুষ হিসেবে তুলনামূলক পার্থক্য করতে বলি- সেটা কিভাবে করবেন? 
দেখুন, শাকিব ভাইয়ের সঙ্গে নাকাব সিনেমায় অভিনয় করেছি। তাঁকে আমার ভীষণ ভালো অভিনেতা, একই সঙ্গে ভালো মানুষও মনে হয়েছে। আবার জায়েদ খানের বিষয়ে তো বললাম। জায়েদ খানের সঙ্গে আমার পরিচয়ই ছিল না। আথচ প্রথম দেখার সময় মোটেও মনে হলো না এটাই প্রথম দেখা। মনে হলো, তাঁর সঙ্গে আমার অনেক আগে থেকেই পরিচয়। এই যে তাঁকে কাছের মনে হওয়া, অপরিচিত মনে না  হওয়া এটা কিন্তু অনেক বড় গুণ। তাঁর সঙ্গে মিশে বুঝলাম, তাঁর আরো গুণ রয়েছে। এই কক্সবাজারে, হোটেল বা শুটিং স্পটে সারাক্ষণ তিনি আমাদের আনন্দের মধ্যে রেখেছেন। মানুষ হিসেবে সবাই এক হয় না। তাহলে বলুন আমি দুজনকে কিভাবে ডিফাইন করব? আসলে  প্রত্যেক মানুষ কিন্তু এক্সক্লুসিভ। জায়েদ খান ও শাকিব খান- দুজনই এক্সক্লুসিভ।

বাংলাদেশে কয়বার আসা হলো? প্রথম নাকি, শাকিব খানের নাকাব-এর শুটিং তো ভারতে হয়েছিল? 
না না, এই নিয়ে আমি বাংলাদেশে দুবার এসেছি। এর আগে একবার এসেছিলাম। সেটা আসলে সিনেমার কোনো কাজে নয়। সেটা ছিল একটা ইভেন্ট কম্পানির ট্যুর। এবার এসে রীতিমতো সারপ্রাইজড হয়ে গেছি।

সারপ্রাইজড? জায়েদ খান সারপ্রাইজড করেছেন?
না না, সেটা বলছি না। এই কক্সবাজার এত সুন্দর! এত সুন্দর সমুদ্র! বালুর তীর! আমি ভাবিনি কক্সবাজার জায়গাটা ভীষণ সুন্দর হবে। আমি এসে অবাক হয়েছি। সুযোগ পেলেই সমুদ্রের দিকে তাকিয়ে থাকি। আজ তো সমুদ্রতীরে শুটিং হচ্ছে। প্রচণ্ড বাতাস। ঝকঝকে আকাশ। বেশ ভালো লাগছে।

তাহলে তো আপনার কলকাতা ফেরার আসলেই প্রয়োজন নেই, এখানে যেহেতু এত ভালো রয়েছেন… 
তবে খারাপ দিকও রয়েছে। এখানের সবাই অনেক অতিথিপরায়ণ। এখানে যেভাবে আমাকে আদর করা হচ্ছে, আপ্যায়ন করা হচ্ছে, তাতে করে তো আমি মুটিয়ে যাব। এত আদর-যত্ন বেশিদিন সহ্য করা যাবে না। যা-ই হোক, আমার ডিরেক্টর ডাকছেন, শট দিতে হবে।

সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও খবর