March 3, 2024, 9:32 am

ভারত-পাকিস্তানের লড়াইয়ের সাক্ষী হবে ক্যান্ডিও

Reporter Name
  • আপডেট Friday, September 1, 2023
  • 51 জন দেখেছে

ক্রীড়া ডেস্ক :: টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর সমর্থকদের আরেকটি অনুপম প্রদর্শনী দেখার অপেক্ষা ফুরাবে আগামীকাল। ভারত-পাকিস্তানের ধ্রুপদি লড়াইয়ের উপলক্ষ যখন বড় কোনো টুর্নামেন্ট, তখন বিশ্বকাপ ও এশিয়া কাপের মতো টুর্নামেন্টের জন্য অধীর আগ্রহে থাকেন সমর্থকেরা। তাঁদের সঙ্গে এবারের অপেক্ষাটা ক্যান্ডির পাল্লেকেলে স্টেডিয়ামেরও। শ্রীলঙ্কার পাল্লেকেলে এর আগে কখনো ভারত-পাকিস্তানের সাক্ষাৎ হয়নি, কোনো সংস্করণেরই ম্যাচেই। স্নায়ুক্ষয়ী লড়াইয়ের সাক্ষী হওয়ার অপেক্ষায় স্টেডিয়ামও। লাহোরে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নেপালকে ২৩৮ রানে হারিয়ে সুপার ফোরে ওঠার পথটা মসৃণ করে রেখেছেন বাবর আজমরা। 

পাকিস্তান ম্যাচ দিয়ে শুরু করবে রোহিত শর্মার দল। হাইভোল্টেজ ম্যাচটি নিয়ে সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটারদের বাগ্যুদ্ধও রীতিতে পরিণত হয়েছে। এবারও আলোচনায় সরগরম সংবাদমাধ্যম। মাঠের খেলায় ন্যূনতম ছাড় না দিলেও দুই দলের ক্রিকেটারদের কথায় অবশ্য সৌহার্দ্যের উপস্থিত মিলছে। 

ভারতের ব্যাটিং ও পাকিস্তানের বোলিংয়ের লড়াইটা বেশ জমবে বলে ধারণা করছেন সাবেকরা। এর সঙ্গে একমত বিরাট কোহলিও। পাকিস্তানের বোলিং আক্রমণকে নিয়ে প্রশংসা উগরে দিলেন ভারতের এই অভিজ্ঞ ব্যাটার। পাকিস্তানের আসল শক্তি ক্ষুরধার বোলিং। তাদের বোলাররা ম্যাচের যেকোনো মুহূর্তে উইকেট নেওয়া সামর্থ্য রাখে। খেলার মোড় ঘুরিয়ে দেওয়ার মতো দক্ষতা তাঁদের আছে। তাই শাহিন শাহ আফ্রিদি-নাসিম শাহদের মোকাবিলা করার জন্য নিজ দলের ব্যাটারদের নিজেদের সেরাটা নিংড়ে দিতে হবে মনে করেন তিনি। 

কোহলি বলেন, ‘আমি মনে করি, বোলিং পাকিস্তানের শক্তি। এবং ওদের কিছু সত্যিই প্রভাবশালী বোলার রয়েছে, যারা তাদের দক্ষতার ওপর ভিত্তি করে যেকোনো সময়ে খেলার গতিপথ পরিবর্তন করতে পারে। তাই তাদের মোকাবিলা করার জন্য আপনাকে সেরাটা দিতে হবে।’ 

সতীর্থদের সতর্ক বার্তা দেওয়া কোহলি অবশ্য পাকিস্তানের বোলিং আক্রমণের বিপক্ষে সব সময়ই উজ্জ্বল। পরিসংখ্যান সেটাই বলছে, পাকিস্তানের বিপক্ষে ১৩ ওয়ানডেতে ৪৮.৭৩ গড়ে কোহলির রান ৫৩৬ রান। তাঁর ওয়ানডে ক্যারিয়ার সেরা ১৮৩ রানের ইনিংসও পাকিস্তানের বিপক্ষে। সর্বশেষ ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কোহলির জন্যই ভারতের বিপক্ষে জয় তুলে নিতে পারেনি পাকিস্তান। শেষ ৮ বলে প্রয়োজনীয় ২৮ রান তুলে ভারতকে জিতিয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন কোহলি। ৫৩ বলে করেছিলেন অপরাজিত ৮২ রান। তাই কোহলিকে নিয়ে আলাদা করেই ভাবতে হচ্ছে পাকিস্তানকে। তাঁর সামর্থ্য সম্পর্কে বেশ ভালো ধারণা হয়ে গেছে পাকিস্তানের বোলারদেরও। তাঁকে আটকানোর সব পরিকল্পনাই করছে পাকিস্তান। 

ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামার আগে শাদাব খান বললেন, ‘ও (কোহলি) অবশ্যই একজন বিশ্বমানের খেলোয়াড়। ওকে মোকাবিলা করার জন্য আপনাকে অনেক পরিকল্পনা করতে হবে। সে যে ধরনের ব্যাটার এবং আমাদের বিপক্ষে যেভাবে পারফর্ম করেছে, এমন কী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শেষ ম্যাচেও ও যেভাবে ব্যাট করেছে, তাতে আমার মনে হয় না বিশ্বের আর কোনো ব্যাটার এমনটা করতে পারত। আমাদের শক্তিশালী বোলিং আক্রমণের বিরুদ্ধে এই ধরনের ইনিংস খেলতে পারে একমাত্র বিরাট কোহলিই। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, ও যেকোনো সময় এমন ইনিংস খেলতে পারে।’ 

এশিয়া কাপে দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে অবশ্য এগিয়ে রোহিতের দলই। ওয়ানডে সংস্করণে দুই দলের ১৩ বারের সাক্ষাতে সাতটি ম্যাচে জয় ভারতের, বিপরীতে পাকিস্তানের পাঁচ জয়। একটি ম্যাচে ফল হয়নি। টি-টোয়েন্টি সংস্করণেও এগিয়ে ভারত। তিন ম্যাচে দুই জয় ও এক হার তাদের।

সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও খবর