July 16, 2024, 10:13 am

গাজীপুরে ট্রাকচাপায় সাংবাদিককে হত্যার অভিযোগে চালক গ্রেফতার

Reporter Name
  • আপডেট Monday, August 7, 2023
  • 59 জন দেখেছে

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর :: গাজীপুরের কাপাসিয়ায় ট্রাকচাপায় সাংবাদিক মঞ্জুর হোসেন মিলনকে (৫০) হত্যার অভিযোগে ট্রাকচালক আহাদ মিয়াকে মুন্সীগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। আজ সোমবার দুপুরে রাজধানীর কাওরানবাজারের মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক খন্দকার আল মঈন এ তথ্য জানান। ট্রাকচালক আহাদ মিয়া (২৬) গাজীপুরের কালিগঞ্জের আতিক মিয়ার ছেলে।
নিহত মঞ্জুর হোসেন মিলন স্থানীয় পত্রিকা গাজীপুর দর্পণের সম্পাদক ছিলেন। গত ৪ আগস্ট সকাল ১০টার দিকে গাজীপুর শহর থেকে কাপাসিয়ায় গ্রামের বাড়িতে যাওয়ার পথে কোটবাজালিয়া এলাকায় একটি ড্রামট্রাক চাপা দিলে মোটরসাইকেল আরোহী মিলন নিহত হন।
নিহতের ভাই কামাল বলেন, ‘ড্রাইভার বেপরোয়াভাবে ট্রাকটি চালাচ্ছিল। এ নিয়ে আমার ভাইয়ের সঙ্গে তার তর্কাতর্কি হয়। একপর্যায়ে ভাইয়ের দেহের ওপর দিয়ে ট্রাক চালিয়ে দেয় চালক। তার মোটরসাইকেলটি অক্ষত রয়েছে।’
তিনি আরও বলেন, ‘এ ঘটনায় ৪ আগস্ট দিবাগত রাত ১টার দিকে আমি কাপাসিয়া থানায় একটি হত্যা মামলার অভিযোগ দিয়েছি। ৫ আগস্ট রাত ১২টার দিকে ওসি এবং কয়েকজন সাংবাদিক মিলে অভিযোগ পরিবর্তন করেন। ওইদিন রাত ১টার দিকে আমার ভাবিকে বাদী বানিয়ে হত্যা মামলার অভিযোগ না নিয়ে অজ্ঞাত আসামি দিয়ে সড়ক পরিবহন আইনে একটি মামলা নেওয়া হয়।’
র‌্যাব জানায়, গ্রেফতার আহাদ ৪ আগস্ট সকালে বালুভর্তি ড্রাম ট্রাক নিয়ে কাপাসিয়া থেকে চাঁদপুরের উদ্দেশে যাচ্ছিল। ট্রাকটিতে অতিরিক্ত ওজনের বালুবোঝাই থাকার পরেও সে তাড়াতাড়ি পৌঁছানোর জন্য বেপরোয়া গতিতে চালাতে থাকে। সকাল আনুমানিক সোয়া ৯টায় কাপাসিয়ার কোর্টবাজালিয়া বাজারে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা ভিকটিম মিলনকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান।
র‌্যাব আরও জানায়, গ্রেফতার আহাদ গত সাত বছর ধরে মাহিন্দ্রা, পিকআপসহ বিভিন্ন ধরনের গাড়ি চালিয়ে আসছিল। তার মাঝারি যানবাহন চালানোর লাইসেন্স থাকলেও ভারী যানবাহন চালানোর কোনও বৈধ ড্রাইভিং লাইসেন্স ছিল না। এ ছাড়াও ট্রাকটির ধারণ ক্ষমতা ৮ টন হলেও সে আনুমানিক ১৪ টন ওজনের বালু বোঝাই করে গাড়িটি চালিয়ে আসছিল। দুর্ঘটনার পর সে কৌশলে ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে কোর্টবাজারে আসে এবং অটোযোগে কালিগঞ্জে চলে যায়। পরে সেখান থেকে তার বাড়ি পৌঁছায়। মামলা হয়েছে জানতে পেরে গ্রেফতার এড়াতে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং এলাকায় তার এক আত্মীয়ের বাড়িতে আত্মগোপনে ছিল।
কাপাসিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ এইচ এম লুৎফুল কবির জানান, ড্রামট্রাকটি অতিরিক্ত মাল বোঝাই করে বেপরোয়া গতিতে চলছিল।

সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও খবর