April 22, 2024, 11:49 am

ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নাগরিকদের ভাবনা

Reporter Name
  • আপডেট Saturday, March 2, 2024
  • 68 জন দেখেছে
নিজস্ব প্রতিবেদক, ময়মনসিংহ :: আগামী ৯ মার্চ ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন।তাই ময়মনসিংহ শহর এখন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রার্থীদের প্রচার প্রচারনায় মুখর।যদিও মিছিল ও মাইকের উচ্চ শব্দে নগরবাসীর স্বাভাবিক জীবন যাপন  কিছুটা বিঘ্নিত হচ্ছে,তবু নির্বাচনের উত্তাপ নগরবাসী ও কিছুটা শিহরিত।গত সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে কোনো প্রতিদ্বন্ডিতা ছিলনা তাই নির্বাচনের প্রচারনা এতটা বুঝা যায়নি।কিন্ত এ বছরের চিত্রটি সম্পুর্ন ভিন্ন।নির্বাচনে অংশগ্রহন উন্মুক্ত করে দেওয়ায় তার সাথে সংসদ নির্বাচনে বিভেদ হওয়ার কারনে খোদ সরকারী দল থেকে প্রার্থী হয়েছেন ৩ জন।তার  সাথে জাতীয় পার্টি ও অন্যান্য প্রার্থী তো রয়েছেই।আবার এর সাথে যোগ হয়েছে ৩৩ টি ওয়ার্ডের শখানেক কমিশনার পদপ্রার্থী।সব মিলিয়ে মাইক আর মিছিলের শব্দে শহর যে এখন অন্য যে কোন বারের তুলনায় অনেক বেশি সরগরম-তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা।
এবার চলুন দেখি নির্বাচন নিয়ে শহরের বিভিন্ন শ্রেনী পেশার নাগরিকরা কি ভাবছেন।প্রথমেই কথা বলছিলাম মিজান নামের একজন অটোরিক্সা চালকের সাথে,তিনি বললেন কমিশনারকে ভোটের ক্ষেত্রে তিনি ব্যাক্তি হিসাবে যে ভাল তাকেই ভোট দিবেন,আর মেয়র হিসাবে তিনি সাবেক মেয়র টিটু ছাড়া অন্যদেরকে তেমন চিনেন না। কাকে স্থানীয় প্রতিনিধি হিসাবে দেখতে চান, জিজ্ঞাসা করলাম শহরের গাংগীনাড়পারের একজন ব্যবসায়ীকে,তিনি বললেন যাকে আমরা বিপদে আপদে সব সময় কাছে পাব  পাব,তাকেই আমরা আমাদের প্রতিনিধি হিসাবে দেখতে চাই।মেয়র হিসাবে কাকে দেখতে চান এ প্রশ্নে তার উত্তর যেহেতু ব্যবসায়ীদের একটি সংগঠনের মুল সাবেক মেয়র ইকরামুল হক টিটুর বড় ভাই শামিম তাই টিটু পাশ করলেই আমরা ব্যবসায়িরা সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধা পাব বলে আমি বিশ্বাস করি।সার্কিট হাউজ মাঠে একদল যুবক ব্যাট বল নিয়ে প্রাকটিস করছিল,তাদেরকে বললাম ভোটের ব্যাপারে কি চিন্তা ভাবনা।তারা স্থানীয় প্রতিনিধি হিসাবে যার যার ওয়ার্ডের শিক্ষিত ও যৌগ্য লোকটিকে বেছে নিবেন বলে জানালেন।কিন্ত মেয়র হিসাবে তারা জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এহতেশামুল আলম ভাইকেই দেখতে চান।কারন হিসেবে তারা বললেন আলম ভাই ক্লাব পাড়ার লোক,ক্রিড়াক্ষেত্রে প্রত্যেক বিভাগেই আলম ভাইয়ের অবদান রয়েছে,তাই আলম ভাই জিতলে নগরের অসুবিধা গুলি দূর করার পাশাপাশি দেশের ক্রিড়াংগনে ময়মনসিংহের নাম আরো উজ্জল করবেন বলে তারা সকলেই আশাবাদী।এরপর গেলাম রাজনৈতিক দলের কয়েকজন কর্মীর কাছে,ওয়ার্ড কমিশনার পদে তাদের স্ব-স্ব ওয়ার্ডের পছন্দের লোককেই নির্বাচিত দেখতে চান।কিন্ত মেয়রের ক্ষেত্রে তারা ইকরামুল হক টিটু,এতেশামুল আলম নাকি  টজু মিল্কি কাকে সমর্থন করছেন এ ব্যাপারটা নিয়ে এখন ও তাদের মধ্যে দ্বিধা দ্বন্দ রয়েছে। এক্ষেত্রে তাদের নেতার  থেকে  সুষ্পষ্ট নির্দেশনা পেলেই তারা নিশ্চিত হবেন বলে তারা জানালেন।
অবশেষে শহরের একজন অবসরপ্রাপ্ত একজন শিক্ষককে নির্বাচন নিয়ে উনার ভাবনার কথা জানতে চাইলাম,তিনি বললেন যেহেতু ক্ষমতাসীন দলের একাংশ থেকে একজন জনপ্রতিনিধি ইতিমধ্যে নির্বাচিত হয়েছেন,সেহেতু অন্য অংশ  থেকে একজন মেয়র নির্বাচিত হলে তা নাগরিকরা লাভবান হবেন বলে তিনি মনে করেন।এক্ষেত্রে কেউ কোন ভুল করলে আরেকজন তা নিয়ে সমালোচনা করবে,যাতে করে উভয়েই তাদের কাজের ব্যাপারে আরো সতর্ক থাকবে,এবং নগরবাসী তার সুফল পাবে।
সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনায় স্থানীয় ওয়ার্ড কমিশনার ও মেয়র পদ উভয় ক্ষেত্রে এবারের নির্বাচন সমান প্রতিদ্বন্ডিতাপুর্ন হবে কি  না তা অস্পষ্ট থাকলেও এবারের নির্বাচন নিয়ে নগরবাসীর মধ্যে ও উৎসাহ ও জল্পনা কল্পনার সীমা নেই।বিশেষ করে ওয়ার্ড কমিশনার ও মেয়র প্রার্থীদের জনগনের কাছে পৌছার দৌড়-ঝাপ লক্ষ্য করার মতন-যা নগরের উন্নয়নের পথে একটি ইতিবাচক দিক ও বটে।যেহেতু কোন রাজনৈতিক মার্কা থাকছেনা,তাই বোধ করি নাগরিকরা তাদের ওয়ার্ড ও নগরের জন্য সত্যিকারের যোগ্য প্রার্থীটিকেই খুঁজে নিবেন।

সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও খবর