April 16, 2024, 10:46 pm

পুলিশের সম্মান নিয়ে যেন কেউ ছিনিমিনি খেলতে না পারে সে দিকে সতর্ক থাকতে হবে: ডিএমপি কমিশনার

Reporter Name
  • আপডেট Tuesday, May 2, 2023
  • 160 জন দেখেছে

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা :: ডিএমপি কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেছেন পুলিশের কোনো সদস্য বা কর্মকর্তার অন্যায়-অনিয়মের জন্য বাহিনীর সুনাম যেন ক্ষুণ্ন না হয় সে ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। পুলিশের সম্মান নিয়ে যেন কেউ ছিনিমিনি না খেলে। ইউনিফর্ম পরে কেউ এমন কোনো কাজ করবেন না যাতে ৩২ হাজার ফোর্সের সম্মানহানি ঘটে। পুলিশ আমার ইউনিফর্ম দিয়েছে, মর্যাদা দিয়েছে। সেই মর্যাদা কোনোভাবেই নষ্ট হতে দেব না। নিউমার্কেট অগ্নিদুর্ঘটনায় পুলিশ সদস্যদের ভালো ও মানবিক কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। আজ মঙ্গলবার রাজারবাগ শহীদ এসআই শিরু মিয়া মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে ডিএমপির পক্ষ থেকে ৩৩ পুলিশ সদস্যকে পুরস্কৃত করা হয়।

ডিএমপি কমিশনার খন্দকার গোলাম ফারুক বলেন, ভবিষ্যতে আমাদের অনেক চ্যালেঞ্জিং পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে হবে। তবে কখনো পুলিশ হারেনি, ১৯৭১ সালেও পুলিশ হারেনি, ভবিষ্যতেও হারবে না। ১৯৭১ সাল থেকেই পুলিশ জনগণের পাশে ছিল, ভবিষ্যতেও থাকবে। স্বাধীন মাতৃকার জন্য পুলিশ সদস্যরা প্রথম বুক পেতে দিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু হত্যার সময় পুলিশ সদস্য সিদ্দিকুর রহমান পালিয়ে যেতে পারতেন, তিনি কিন্তু পালিয়ে যাননি, বঙ্গবন্ধুকে রক্ষা করতে গিয়ে তিনি জীবন দিয়েছেন।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, নিউমার্কেটের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় পুলিশ যে মানবতার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছেন, যে মানবিক কাজটি করেছেন তা নতুন কিছু নয়। তা পুলিশের দায়িত্ব মাত্র। ১৯৭১ সাল থেকেই পুলিশ সদস্যরা যেকোনো ধরনের ঝুঁকি নিতে পারে। এর প্রমাণ নিউ মার্কেটের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা। আমরা সিনিয়র অফিসার, আমাদের কিছু দায়িত্ব আছে। আমার পুলিশ, আমার সহকর্মীদের উৎসাহিত করা, অনুপ্রেরণা, সাহস দেওয়া আমাদের পবিত্র দায়িত্ব-কর্তব্য। কারণ তারা দেশমাতৃকা রক্ষা সদা জাগ্রত। মুখে বাঁশি বাজানো, মাথায় বিশাল কাপড়ের বস্তা নিয়ে বের হওয়ার ছবি সারা দেশে ভাইরাল হয়েছে। এটা বাংলাদেশ তথা ডিএমপির মর্যাদা অনেক দূর নিয়ে গেছে। ডিএমপির সদস্যরা যা করেছেন তা পুরস্কার দিয়ে পূরণ সম্ভব নয়। তবে ভালো কাজের স্বীকৃতি এটি। এটি ম্যাসেজ। বাকি সদস্যরা যেন এটা বোঝেন, উৎসাহিত হোন। পুলিশ সদস্যরা ভবিষ্যতে যারাই ভাল কাজ করবেন তাদের পুরস্কৃত করা হবে।

ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (অ্যাডমিন) এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, সাম্প্রতিক যতগুলো ঘটনা ঘটেছে তারমধ্যে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে পুলিশ সদস্যদের মানবিক ভূমিকা। যখন ব্যবসায়ীদের কান্নাররোল পড়েছিল, তখন পুলিশের ভূমিকা শুধু দেশ নয় পুরো বিশ্বে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল। আমি সেসব মানবিক পুলিশ সদস্যদের প্রতি স্যালুট জানাই। আমি অনুপ্রাণিত। সামনে নির্বাচন। আমরা পেশাদারিত্বের সঙ্গে কাজ করব। আগুনের মতো দুর্ঘটনা ঘটলে দ্বিধা-দ্বন্দ্ব, মতপার্থক্য ভুলে কাজ করতে হবে। আমরা যাই করি জনগণের জন্য কাজ করি।

ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার ক্রাইম (অ্যান্ড অপস) ড. খ মহিদ উদ্দিন বলেন, নিউমার্কেটের আগুনের ঘটনার দিন যখন পায়ে হাঁটা যাচ্ছিল না, পানি জমেছে, তখন পুলিশ সদস্যদের বস্তার পর বস্তা মালামাল বের করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। বিপদের মুহূর্তে আমরা কতটা পাশে থাকি সেটা গুরুত্বপূর্ণ। পুলিশকে দেখে অন্যান্য বাহিনী কিন্তু বসে থাকেনি। তারাও ঝাঁপিয়ে পড়েছেন। সহকর্মীদের যেকোনো শ্রমের মূল্য দিতে পুলিশ কমিশনার উন্মুখ। ব্যবসায়ীরা আমাদের প্রিয়জন, কারো আত্মীয়-স্বজন।

বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি হেলাল উদ্দিন বলেন, পুলিশ সদস্যরা যেভাবে নিউমার্কেটের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় এগিয়ে এসেছিল তা অভূতপূর্ব। সেদিন যদি পুলিশ মানবিক পুলিশিংয়ের ভূমিকা না রাখতেন, তাহলে হয়তো আমরা আরেকটা বঙ্গবাজারের মতো ক্ষতিকর অগ্নিকাণ্ড দেখতাম।

সিরিজ অগ্নিকাণ্ড কিসের আলামত- এমন প্রশ্ন রেখে হেলাল বলেন, আমরা এই সিরিজ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা দেখতে চাই না। মার্কেটে পাহারার ব্যবস্থা করেছি, পুলিশও সহযোগিতা করেছে। ঈদের পাঁচ দিনে কোথাও কোনো মার্কেটে আগুনের ঘটনা ঘটেনি।

সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও খবর