May 28, 2024, 5:09 am

গাজীপুরের কালীগঞ্জে মাদকাসক্ত পুত্রকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগে

Reporter Name
  • আপডেট Wednesday, April 3, 2024
  • 76 জন দেখেছে

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর :: গাজীপুরের কালীগঞ্জে মাদকাসক্ত পুত্রকে ঘুমন্ত অবস্থায় কুপিয়ে হত্যার অভিযোগে পিতাকে আটক করেছে পুলিশ। ছেলের অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে পিতা এ ঘটনা ঘটিয়েছেন বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। আজ বুধবার কালীগঞ্জের জামালপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। নিহত কাউসার বাগমার (২৫) জামালপুর এলাকার রশিদ বাগমারের ছেলে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কাউসার বাগমারা বছরখানেক আগে সৌদি আরব থেকে দেশে ফেরে। এর পর থেকেই সে মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। বিভিন্ন সময় মাদকের টাকার জন্য বাড়িতে ভাঙচুর ও বাবা-মাকে অত্যাচার ও নির্যাতন করত। এতে অতিষ্ঠ হয়ে   বুধবার ভোরে ঘুমন্ত অবস্থায় কাউসারকে কুড়াল দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে তার বাবা রশিদ বাগমারা। রশিদ বাগমারের তিন ছেলে ও এক মেয়ে। এর মধ্যে কাউসার ছোট ছেলে। বড় ছেলে সিঙ্গাপুরফেরত।
নিহতের মা মোসলেমা বেগম বলেন, কাউসার মাদকাসক্ত। মাদকের টাকার জন্য প্রায়ই বাড়িতে ঝগড়া-বিবাদ ও ভাঙচুর করত। মাদকের টাকার জন্য জমি বিক্রি করতে তার বাবাকে প্রায়ই চাপ দিয়ে আসছিল। গতকাল রাতে নেশার টাকার জন্য দুই কাঠা জমি বিক্রি করে টাকা দাবি করে। টাকা দিতে রাজি না হলে আমাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। এ ঘটনায় তার বাবা ভোরে তাকে ঘুমন্ত অবস্থায় কুঠার দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে।
নিহতের ভাই আশরাফুল বলেন, কাউসার সারা রাত বাড়ির বাইরে থাকত ও মাদক সেবন করত। মাদকের জন্য প্রায়ই মায়ের কাছ থেকে টাকা চাইত। মা টাকা না দিলে ভাঙচুর করত ও মাকে মারধরও করত। গতকাল রাতে বাড়িতে এসে মাকে টাকার জন্য গালিগালাজ করে ও মেরে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। পরে মা কাঁদতে কাঁদতে বাড়ি ছেড়ে চলে যান। এ ঘটনায় বাবা ক্ষোভের বশে কুপিয়ে কাউসারকে হত্যা করে।
কালীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহাতাব উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলে পুলিশ পৌঁছে অভিযুক্ত রশিদ বাগমারকে আটক করা হয়েছে। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত কুড়াল উদ্ধার করে জব্দ করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও খবর