June 21, 2024, 10:57 am

সরকারকে দোষারোপ করার ধৃষ্টতা দেখিয়েছে বাফুফে : ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী

Reporter Name
  • আপডেট Sunday, April 9, 2023
  • 245 জন দেখেছে

দৈনিক বিজয়বাংলা ডেস্ক :: ‘টাকার অভাবে’ সাফ চ্যাম্পিয়ন মেয়েদের অলিম্পিক বাছাই পর্বে পাঠাতে পারেনি বাফুফে! এ ঘটনা নিয়ে কিছুদিন ধরেই দেশের ক্রীড়াঙ্গনে তোলপাড় চলছে। এদিকে বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ এক বিবৃতিতে বলেছিলেন, ‘জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ বা যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের নিকট পজিটিভ ফিডব্যাক না পাওয়ায় বাফুফের সিদ্ধান্ত হচ্ছে, বাংলাদেশ নারী ফুটবল দল অলিম্পিক বাছাইয়ে অংশগ্রহণ করছে না।’ তার এই বক্তব্যের কঠোর জবাব দিয়েছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল।

আজ রবিবার নিজ কার্যালয়ে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘কারো দোষ বা ভুল যদি অন্য কারো কাঁধে চাপিয়ে দেওয়ার ইচ্ছা থাকে তবে অনেকভাবেই দেওয়া যায়। সেটা কিন্তু এই নারী ফুটবল দলের ক্ষেত্রে দেখতে পেলাম। যারা আমাদের জন্য এত বড় অর্জন এনে দিয়েছে, সাফ জিতে সারা দেশকে সম্মানিত করেছে তারা অলিম্পিক বাছাইয়ে অংশ নিতে পারবে না এর চেয়ে বড় কষ্টের আর কিছু হতে পারে না। আমরা দেখলাম বাফুফের সভাপতি, সহসভাপতি বা নির্বাচিত কেউ কথা বলেনি। সেখানে একজন বেতনভুক্ত সম্পাদক সরকারকে দোষারোপ করে বক্তব্য দিয়েছে যে, সরকার এই টাকা না দেওয়ায় দল পাঠাতে পারেনি!’

তিনি আরো বলেন, ‘একটা কথা হচ্ছে, সরকারের কিছু সিস্টেম আছে। টাকা চাইলে হাতে কিছু সময় দিতে হয়। আমাদের কাছে কোনো ফেডারেশন টাকা চাইলে আমাদের সেটা অর্থ মন্ত্রাণলয়ে পাঠাতে হয়। আমাদের থেকেও যদি টাকা দিতে চাই সেটাও আবার অর্থ মন্ত্রাণলয়ের অনুমতি নিতে হয়। কিন্তু আমাদের কোনো সময়ই দেওয়া হয়নি। ২৭ তারিখে আমরা চিঠি পেলাম; কিন্তু ২৯ তারিখে বাফুফে সংবাদ সম্মেলন করে জানাল, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রাণলয় টাকা দিতে পারবে না!’

যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, ‘আমরা চিঠি পেয়েছিই ২৭ তারিখে। এক দিন পরেই তারা কিভাবে এ রকম বক্তব্য দেয়! যেখানে আমরা ২৭ তারিখে চিঠি পেয়ে কাজ শুরু করেছি। অর্থ মন্ত্রাণলয়ে আমরা চিঠি দিয়েছি তাদেরকে আর্থিক বরাদ্দ দেওয়ার জন্য; কিন্তু সেই বিষয়ে আমাদের সময়ই দেওয়া হলো না। আমরা কিছু করার সুযোগই পেলাম না। যারা আমাদের জন্য এত বড় অর্জন এনে দিয়েছে তাদের সহযোগিতা করব, কিন্তু এ জন্য সময়ই দেওয়া হলো না এবং দোষারোপ করে কথা বললেন!‍ এ ধরনের কথা বলা ধৃষ্টতাপূর্ণ বিষয়।’

সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও খবর