June 23, 2024, 11:27 pm

নির্বাচন কমিশনের নীতিমালা স্বাধীন সাংবাদিকতার পথ রুদ্ধ করার শামিল : এম আবদুল্লাহ

Reporter Name
  • আপডেট Friday, April 14, 2023
  • 218 জন দেখেছে

স্টাফ রিপোর্টার, গাজীপুর :: বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)’র সভাপতি এম আবদুল্লাহ আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাংবাদিকদের জন্যে নির্বাচন কমিশন যে নীতিমালা জারি করেছে তা প্রত্যাখ্যান করে বলেছেন, স্বাধীনভাবে পেশাগত দায়িত্ব পালন এবং বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ সংগ্রহ বাধাগ্রস্ত করতেই নির্বাচন কমিশন অযৌক্তি ও অগ্রহণযোগ্য নীতিমালা জারি করেছে। অনুমতি নিয়ে প্রবেশের বাধ্যবাধকতা এবং মোটরসাইকেল ব্যবহার, ১০ মিনিটের অধিক অবস্থান, লাইভ সস্প্রচার, একসঙ্গে দুই জনের অধিক সাংবাদিকের প্রবেশ, ভোট কর্মকর্তা, এজেন্ট ও ভোটারদের সঙ্গে কথা বলার ওপর নিষেধাজ্ঞা দেওয়া সম্পূর্ণ অগণতান্ত্রিক। নির্বাচন কমিশনের নীতিমালা স্বাধীন সাংবাদিকতার পথ রুদ্ধ করার শামিল। অন্যায্য বিধিনিষেধ সাংবাদিক সমাজ মানবে না বলে মন্তব্য করেন বিএফইউজে সভাপতি।
বৃহস্পতিবার (১৩ এপ্রিল) সাংবাদিক ইউনিয়ন গাজীপুর (জেইউজি)’র বার্ষিক সাধারণ সভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএফইউজে সভাপতি এসব কথা বলেন। টঙ্গীর একটি কমিউনিটি সেন্টাওে জেইউজি’র সভাপতি এইচ এম দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ হেদায়েত উল্লাহ’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন বিএফইউজে’র মহাসচিব নুরুল আমিন রোকন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএফইউজে’র সহ-সভাপতি ওবায়দুর রহমান শাহীন, প্রচার সম্পাদক মাহমুদ হাসান। অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকার, গাজীপুর জেলা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ডা. শফিকুল ইসলাম, শ্রমিক দলের কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মহানগর বিএনপির সাবেক আহবায়ক মো. সালাহ উদ্দিন সরকার, মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক রাকিব উদ্দিন সরকার পাপ্পু। উপস্থিত ছিলেন, সিটি কাউন্সিলর ও মেয়র প্রার্থী আওয়ামী নেতা আবদুল্লাহ আল মামুন মন্ডল, মেয়র প্রার্থী সরকার শাহনূর ইসলাম রনি, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি আরিফ হোসেন হাওলাদার, সাবেক কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মদ আলেক, জেইউজি’র নেতা অধ্যাপক শামসুল হুদা লিটন, এস এম হাবিবুর রহমান, গাযী খলিলুর রহমান প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে এম আবদুল্লাহ সাংবাদিক ইউনিয়ন গাজীপুরের সহসভাপতি ও দৈনিক নয়া দিগন্তের মহানগর প্রতিনিধি শেখ আজিজুল হকের ওপর বর্বরোচিত হামলার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেন, নিজেদের ব্যক্তি স্বার্থে প্রেসক্লাব দখলে রাখতে কোনো সাংবাদিক তার সহকর্মীর ওপর এমন পৈশাচিক হামলা চালাতে পারে না। এমন হিংস্রতা কোনভাবেই কাম্য নয়।
এম আবদুল্লাহ শীর্ষ দৈনিক প্রথম আলোর বিরুদ্ধে সরকারের পক্ষ থেকে রীতিমত যুদ্ধ ঘোষণার তীব্র সমালোচনা করে বলেন, কোন সরকার প্রধান যখন একটি সংবাদ প্রতিষ্ঠানকে প্রতিপক্ষ হিসেবে দাঁড় করান তখন বুঝতে হবে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে হিতাহিত জ্ঞান হারিয়ে ফেলেছেন। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। প্রথম আলো অফিসে দুর্বৃত্তের হানা প্রমান কওে পেশীশক্তি দিয়ে স্বাধীন সাংবাদিকতাকে বাধাগ্রস্ত করাই ক্ষমতাসীনদের লক্ষ্য। বিএফইউজে সভাপতি দেশে সংবাদমাধ্যমে বিরাজমান ঘোর দুর্দিন, সাংবাদিক হত্যা, নির্যাতন, নিপীড়নের চিত্র তুলে ধরে এ পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের জন্যে দেশে গণতন্ত্র ফেরানোর সংগ্রামকে শানিত করার ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
বিএফইউজে’র মহাসচিব নুরুল আমিন রোকন বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে সাংবাদিক নির্যাতন, নিপীড়ন ও সংবাদমাধ্যম দলন সাধারণ নিয়মে পরিনত হয়। একের পর এক সাংবাদিক হত্যা হয়, নির্যাতন হয় কিন্তু বিচার হয় না। সাম্প্রতিক দিনগুলোতে প্রথম আলো সম্পাদক ও পত্রিকার সাংবাদিকের বিরুদ্ধে যেভাবে রাষ্ট্রীয় খড়গ নেমে এসেছে তা ধারাবাহিক দমন-নিপীড়নেরই অংশ। এ অবস্থা থেকে উত্তরণে ঐক্যবদ্ধ সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।
আমন্ত্রিত অতিথির বক্তৃতায় বীর মুক্তিযোদ্ধা হাসান উদ্দিন সরকার সাংবাদিকদের দাবির প্রতি সংহতি প্রকাশ করে বলেন, যতদিন পর্যন্ত ইসলামী চেতনা ধারণ করতে না পারবেন ততদিন পর্যন্ত সফল হতে পারবেন না। যে দেশের জনসংখ্যার অধিকাংশই মুসলিম সে দেশে ইসলামী চেতনা ছাড়া অন্য কোনো চেতনা চলতে পারে না। সাংবাদিকদেরকে ইসলামী চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে দেশ ও জনগণের সেবায় আত্মনিয়োগ করতে হবে। ইসলামী চেতনা জাগ্রত হলে তবেই অন্তরে দেশপ্রেম পয়দা হবে।

সোস্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই সম্পর্কিত আরও খবর